মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

এক নজরে

 রাজারহাট উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তার কার্যালয়ের কর্মসূচিসমূহ

ভুমিকা ঃ যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের মূল লক্ষ্য হচ্ছে দেশের বেকার যুবদের বিশেষ কোন বিষয়ে  দক্ষতাবৃদ্ধিমূলক প্রশিক্ষণ প্রদান করা এবং তার প্রশিক্ষণলব্ধ জ্ঞানকে কাজে লাগিয়ে তাকে একজন সফল আত্নকমিতে প্রতিষ্ঠিত করা । প্রশিক্ষিত যুব যেন  নিজ উদ্দেয়গে আত্নকর্মসংস্থান করে নিজের পায়ে  দাঁড়াতে পারে এবং  এলাকার অন্য যুবদের আত্নকর্মসংস্থানে  উদ্বুদ্ধ করতে ভূমিকা রাখতে পারে । যুব সংগঠন তৈরির মাধ্যমে এলাকার আর্থ- সামাজিক  তথা দেশের সার্বিক উন্নতিতে  প্রত্যক্ষ ভূমিকা পালন করা । সে লক্ষে সারা দেশের মত কুড়িগ্রাম জেলার রাজারহাট উপজেলায় যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর কাজ করে যাচ্ছে । এ উপজেলায় যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর যে সমস্ত কর্মসূচি বাস্তবায়ন করেছে ও বাস্তবায়িত হয়েছে তা নিম্নরূপ ।

 

০১। ন্যাশনাল সার্ভিস কর্মসূচি ঃ গনপ্রজাতন্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা ২০১০ সালের ৬ মার্চ বেকার যুবদের কর্মসংস্থানের জন্য পাইলট প্রকল্প হিসেবে কুড়িগ্রাম জেলায় এই কর্মসূচির উদ্বোধন করেন। পশ্চাদপদ কুড়িগ্রাম জেলার বেকার যুবদের কর্মসংস্থানে ন্যাশনাল সার্ভিস কর্মসূচি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে এবং এ অঞ্চলের আর্থ- সামাজিক উন্নয়নে এ কর্মসূচি একটি মাইলফলক । এ কর্মসূচির আওতায় কুড়িগ্রাম জেলায় মোট ২৯৮১৫ জন যুব ২ বৎসরের জন্য অস্থায়ী সংযুক্তিপ্রাপ্ত হয় ।

 রাজারহাট উপজেলায় ২৩১১ জন যুবক ও ১০৬৯ জন  যুব মহিলা সহ মোট ৩৩৮০ জন যুবকে ০৩ মাসের মৌলিক প্রশিক্ষণ দেয়া হয় । এদের মধ্যে ড্রপ আউট ও চূড়ান্ত বাছাই শেষে ২২৭৪ জন যুবক ও ১০৬০ জন যুব মহিলাসহ মোট ৩৩৩৪ জন যুবকে ০২ বৎসরের অস্থায়ী সংযুক্তি দেয়া হয় । প্রশিক্ষনকালীন সময়ে যুবদের দৈনিক ১০০/= টাকা হারে প্রশিক্ষনভাতা এবং সংযুক্তিকালীন সময়ে দৈনিক ২০০/= টাকা হারে মাসিক ৬০০০/= টাকা ভাতা দেয়া হয় ।  যুবরা বিভিন্ন সরকারী- বেসরকারী সংস্থায় সংযুক্তিপ্রাপ্ত হয়ে সে প্রতিষ্ঠানের হয়ে কাজ করে এবং অভিজ্ঞতা অর্জন করে।

     ০২ বৎসরের অস্থায়ী সংযুক্তি শেষে যুবদের অনেকে তাদের অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে বিভিন্ন সরকারী- বেসরকারী সংস্থায় চাকুরী করছে । অনেক যুব তাদের সঞ্চিত টাকা দিয়ে প্রশিক্ষন আর অভিজ্ঞতালব্ধ জ্ঞানকে কাজে লাগিয়ে বিভিন্ন ধরনের আত্নকর্মসংস্থানমূলক প্রকল্প গ্রহণ করে স্মাবলম্বি হয়েছে এবং  হওয়ার চেষ্টা করছে ।পশ্চাদপদ রাজারহাট উপজেলা তথা কুরিগ্রামের অর্থনৈতিক উন্নয়নে এ কর্মসূচিটি একটি আশীর্বাদ ।

 

০২। যুব প্রশিক্ষণ ঃ যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের অন্যতম লক্ষ্য হচ্ছে ১৮ থেকে ৩৫ বৎসর বয়স্ক যুবদের বিভিন্ন প্রাতিষ্ঠানিক বিষয়ে প্রশিক্ষণ প্রদান করা। সে লক্ষে, জেলা পর্যায়ে কম্পিউটার , ভেটেরিনারি ,মৎস্যচাষ , মোবাইল সার্ভিসিং ,ইলেকট্রিক্যাল , ইলেকট্রনিক্স ,সেলাই ও পোশাক তৈরি সহ নানা বিষয়ে ০১-০৬ মাস মেয়াদি  প্রাতিষ্ঠানিক প্রশিক্ষণ দেয়া হয় । অত্র উপজেলা থেকে যুবদের আবেদনের প্রেক্ষিতে তাদের কুড়িগ্রাম জেলা কার্যালয়ে প্রাতিষ্ঠানিক প্রশিক্ষণ অংশগ্রহণের সুযোগ করে দেয়া হয় । এজন্য যুবদের বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী প্রশিক্ষনে অংশগ্রহণের জন্য উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা বরাবর আবেদন করতে হয় ।

 

 উপজেলা কার্যালয় থেকে ০১-৩০ দিন মেয়াদি ভেটেরিনারি ,মৎস্যচাষ , সেলাই ,হাঁসমুরগি পালন , গাভিপালন , গরু  মোটাতাজাকরন , নার্সারি সহ কমপক্ষে ৪০ টি বিষয়ে প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়। এছাড়া , স্থানীয় চাহিদার ভিত্তিতেও যেকোনো আয়-বর্ধনমূলক বিষয়ে প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়। রাজারহাট উপজেলায়  জুলাই/১৯ পর্যন্ত এ যাবত ৩৭৭৫ জন যুবক ও ১৭৯৮ জন  যুব মহিলা সহ মোট ৫৫৭৩ জন যুবকে বিভিন্ন বিষয়ে প্রাতিষ্ঠানিক ও অপ্রাতিষ্ঠানিক   বিষয়ে প্রশিক্ষণ দেয়া হয়েছে । এ প্রশিক্ষণ গ্রহনের জন্যও ১৮ থেকে ৩৫ বৎসর বয়স্ক  কমপক্ষে ৮ম শ্রেণী পাস যুবদের উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা বরাবর তার দপ্তরে আবেদন করতে হয় ।

 ০৩ । যুব ঋণ ঃ যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ  কার্যক্রম  হচ্ছে যুব ঋণ ।প্রশিক্ষণ গ্রহন শেষে কোন যুব  আত্নকর্মসংস্থানমূলক প্রকল্প  শুরু অথবা সম্প্রসারণ করার জন্য ঋণ সহযোগিতা চাইলে তাকে যুব ঋণ দিয়ে সহযোগিতা করা হয় । এজন্য , যুবদের উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা বরাবর  প্রশিক্ষনের সনদপত্রের ফটোকপি সহ তার দপ্তরে আবেদন করতে হয় । জরিপ শেষে প্রকত প্রকল্প গ্রহণকারীদের  যুবদের অপ্রাতিষ্ঠানিক ট্রেডে দফা অনুযায়ী ৩০০০০০/= থেকে ৫০০০০০/= টাকা ঋণ দেয়া হয় ।  প্রাতিষ্ঠানিক ট্রেডে দফা অনুযায়ী ৫০০০০০/= থেকে ১০০০০০/= টাকা ঋণ দেয়া হয় । এছাড়া , বড় প্রকল্পে ঋণ সহযোগিতা করতে না পারলে বিভিন্ন ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিস্থানের সঙ্গে সংযোগ করে বড় অঙ্কের ঋণের ব্যবস্থা করে দেয়। রাজারহাট উপজেলায়  জুলাই/১৯ পর্যন্ত  আত্নকর্ম রাজস্ব খাতের আওতায়   ৫৯৯ জন যুবক ও ১০২ জন  যুব মহিলা সহ মোট ৭০১ জন যুবকে ১,৩৩,০৪,০০০/= টাকা ঋণ দেয়া হয়েছে ।

 

 ০৪। উত্তরবঙ্গের ০৭টি জেলায় বেকার যুবদের কর্মসংস্থান ও আত্নকর্মসংস্থান শীর্ষক প্রকল্প ঃ   গনপ্রজাতন্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর অগ্রাধিকারমুলক এ প্রকল্পটি উত্তরবঙ্গের বেকার যুবদের কর্মসংস্থানের ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে । এ অঞ্চলের অপেক্ষাকৃত দরিদ্র পরিবারগুলো  যাতে অর্থনৈতিকভাবে স্মাবলম্বি হতে পারে এবং পারিবারিক বন্ধন সুদৃঢ় করতে পারে / রাখতে পারে সে মুল উদ্দেশ্যকে সামনে রেখে এ কর্মসূচী দেয়া হয়েছে । বরতমানে এ প্রকল্পের ২য় পর্বের কাজ চলছে । একই পরিবারের ০১-০৫ জন সদ্যসকে  (১৮ থেকে ৩৫ বৎসর বয়স্ক ) এ কর্মসূচীর মাধ্যমে অন্তর্ভুক্ত  করা হয় । হাঁসমুরগি পালন , গাভিপালন , গরু  মোটাতাজাকরন , ছাগল ও ভেড়া পালন  এবং নার্সারি সহ মোট ০৫ (পাঁচ ) টি বিষয়ে প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়। এ প্রশিক্ষণ কোর্সটি চলার সময়ে  প্রতিটি প্রশিক্ষণার্থীকে দৈনিক ১০০/= টাকা হারে প্রশিক্ষণভাতা এবং প্রশিক্ষণ চলাকালীন বিরতিতে নাস্তার ব্যবস্থা রয়েছে ।

 

এ কর্মসূচীর মাধ্যমে রাজারহাট উপজেলায়  নভেম্বর/১৮ পর্যন্ত ৫৩০ জন যুবক ও ৪৪২ জন  যুব মহিলা সহ মোট ৯৭২ জন যুবকে  উপরে বর্ণিত ০৫টি  বিষয়ে প্রশিক্ষণ দেয়া হয়েছে  এবং ২৩৫ জন যুবক ও ১৫২ জন  যুব মহিলা সহ মোট ৩৮৭ জন যুবকে ১,১৫,০৯,০০০/= টাকা ঋণ দেয়া হয়েছে । পিছিয়ে পড়া এ অঞ্চলের পরিবারগুলির আর্থ- সামাজিক উন্নয়নে এ কর্মসূচী বিশেষ ভুমিকা পালন করছে ।

 

০৫। সোয়েটার নিটিং ও লিংকিং মেশিন অপারেটিং প্রশিক্ষন কোর্স ঃ এ কর্মসূচীর আওতায় অত্র জেলার অতি দরিদ্র / অসচ্ছল পরিবারের যুবদের সোয়েটার নিটিং ও লিংকিং মেশিন অপারেটিং  বিষয়ে আবাসিক / অনাবাসিক বিষয়ে  ০১ মাসের প্রশিক্ষন দেয়া হয় । প্রশিক্ষন শেষে তাদের সরাসরি বাংলাদেশের বিভিন্ন স্থানে অবস্থিত গার্মেন্টস ফ্যাক্টরিতে চাকুরির ব্যবস্থা করে দেয়া হয় । প্রশিক্ষণ কোর্সটি চলার সময়ে  প্রতিটি প্রশিক্ষণার্থীকে দৈনিক ১০০/= টাকা হারে প্রশিক্ষণভাতা/ থাকা –খাওয়ার ব্যবস্থা করা হয় ।

 

 

০৬। নেটওয়ার্কিং কর্মসূচী ঃ এ কর্মসূচীর মাধ্যমে রাজারহাট উপজেলার স্থানীয় ০২টি যুব সংগঠনের মাধ্যমে গ্রামীন বেকার যুবদের কম্পিউটার বিষয়ে স্বল্পমেয়াদী প্রশিক্ষণ দেয়া হয় । আধুনিক যোগাযোগ মাধ্যমের সাথে পরিচিত করার মানসে মূলত এ প্রকল্পটি চালু করা হয় ।  রাজারহাট উপজেলায়  নভেম্বর/১৮ পর্যন্ত ৪৮০ জন যুবকে প্রশিক্ষণ দেয়া হয়েছে ।

 

০৭। যুব সংগঠন নিবন্ধন করণ ঃ দেশের আর্থ- সামাজিক উন্নয়ন কর্মকাণ্ডে যুবদের সম্পৃক্ত করার লক্ষে উপজেলা পর্যায়ে যুব সংগঠন /যুব সংস্থা নিবন্ধন করা হয় । নিবন্ধনপ্রাপ্ত  যুব সংগঠন /যুব সংস্থাগুলি  নিজ নিজ এলাকায় বাল্যবিবাহ , বহুবিবাহ , জঙ্গিবাদ–সন্ত্রাসবাদ নির্মূল ,মাদকদ্রব্য  নির্মূল , যুবদের মাদক সেবনে নিরুতসাহিত করা , নারীর ক্ষমতায়নসহ  নানা বিষয়ে সচেতন করছে  এবং তাদের উন্নয়নে ভুমিকা রাখছে।

০৮। আত্নকর্ম সৃজন ঃ উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তার কার্যালয় রাজারহাট কতক বেকার যুবদের কর্মে সম্পৃক্ত হওয়ার জন্য উৎসাহিত করে এবং সার্বিক সহযোগিতা করে থাকে । অন্যান্য  সরকারি – বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে সংযোগ সাধন করে আত্নকর্ম তথা নিজের পায়ে দাঁড়াতে আত্নকর্ম সৃজনের কাজ করে থাকে।

 

০৯। অন্যান্য কর্মসূচি ঃ উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তার কার্যালয় রাজারহাট কতক যুব সংগঠনদের অর্থনৈতিক- সামাজিক কর্মকাণ্ড পরিচালনার জন্য অনুদান প্রদান করা হয় । সফল আত্নকর্মী যুবকে যুব পুরুস্কার করা দেয়া হয়। এছাড়া , উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তার কার্যালয় রাজারহাট জাতীয় যুব দিবস সহ বিভিন্ন দিবসসমূহ উদযাপন করে থাকে । বিভিন্ন উন্নয়ন মেলায় সক্রিয় অংশগ্রহণ করে থাকে ।

ছবি


সংযুক্তি


সংযুক্তি (একাধিক)



Share with :

Facebook Twitter